গ্যাস্ট্রিক কি? গ্যাস্ট্রিক থেকে মুক্তির উপায়

রমজানের এই পবিত্র মাসে মুসলমানরা সূর্যোদয় থেকে সূর্যাস্ত পর্যন্ত উপবাস করে১২-১৪ ঘন্টা রোযা রাখার পর, অনেক শারীরিক সমস্যার সম্মুখীন হতে হয়, যার মধ্যে একটি সমস্যা হল গ্যাস্ট্রিকএছাড়াও অনেকেই রোযা পালন না করেই গ্যাস্ট্রিক এর সমস্যায় ভুগছেন। রমজানে আমাদের খাবারে অনেক পরিবর্তন আসে। দৈনন্দিন খাবারের পাশাপাশি অনেক ধরনের খাবার যেমন ভাজা-পোড়া, তেলযুক্ত খাবার ইত্যাদি খাওয়া হয়, যার ফলে আমারা অনেকেই গ্যাস্ট্রিক সমস্যায় ভুগে থাকি। রমজানে হজমে গণ্ডগোলের সমস্যা যেন নিত্যদিনের সঙ্গী। এর কারনে পেট ব্যথা, গ্যাস কিংবা ফুড পয়জনিং ইত্যাদি রোগ হতে পারে। কারণ সারাদিন না খেয়ে  থাকার পর হঠাৎ করে অনেক খাবার একসাথে গ্রহণ করলে আপনার পরিপাকযন্ত্রে সমস্যা দেখা দিতে পারে। যারা গ্যাস্ট্রিক এর সমস্যার সাথে সাথে পেপটিক আলসারে ভুগছেন তাদের অবশ্যই রমজানের আগে ডক্টরের পরামর্শ নিতে হবে। এই গ্যাস্ট্রিক এর সমস্যা থেকে পরিত্রাণ পেতে কিছু পার্শ্বপ্রতিক্রিয়াহীন ঘরোয়া উপায়

আপনাদের জন্য:-

 gastric gastric pain medicine gastric pain causes gastric pain area gastric pain relief



গ্যাস্ট্রিক হলে যা করা অনুচিৎঃ

  • ভাজা-পোড়া খাবার খাওয়া যাবে না।
  • অতিরিক্ত মসলাযুক্ত খাবার খাওয়া থেকে বিরত থাকতে হবে।
  • তেল-চর্বিযুক্ত খাবার খাওয়া যাবে না।
  • ঝালযুক্ত খাবার গ্যাস্ট্রিক এর রোগীদের খাওয়া সম্পূর্ণ নিষেধ।
  • খুব গরম খাবার খাওয়া উচিৎ নয়।
  • দুধ খেলে অনেকের গ্যাস্ট্রিক হয়, তাই তাদের জন্য এটি না খাওয়াই ভাল।
  • আনারস খালি পেটে খেতে নিষেধ করে ডাক্তাররা।
  • কফি খাওয়া বর্জন করতে হবে।
  • সফট ড্রিংকস না খাওয়াই ভাল।
  • সরিষার তেল গ্যাস্ট্রিক এর রোগীদের খাওয়া উচিৎ নয়।
  • চা বিশেষ করে দুধ চা খাওয়া যাবে না।

 gastric gastric pain medicine gastric pain causes gastric pain area gastric pain relief



গ্যাস্ট্রিক হলে যা খাওয়া উচিৎঃ

  • প্রচুর পরিমানে পানি পান করবেন।
  • আদা কুচির সঙ্গে কয়েক ফোঁটা মধু মিশিয়ে প্রতিদিন ইফতারের পর খেতে পারেন, তাহলে খাবার দ্রুত হজমে সাহায্য করবে।
  • দই খেতে পারেন।
  • স্ট্রবেরি গ্যাস থেকে আপনাকে মুক্তি দিবে। আপনি যদি ২-৩ টা স্ট্রবেরি খেতে পারেন, তাহলে অন্ত্রের অস্বস্তি বা ব্যথা কমতে পারে।
  • বদহজম থেকে রক্ষা পেতে বোরহানি খেতে পারেন। প্রতিদিন ইফতারের পর একগ্লাস বোরহানি পানের অভ্যাস করতে পারলে গ্যাস্ট্রিকের সমস্যা অনেকাংশে দূর হবে।
  • কলা ফুড পয়জনিং কমাতে সাহায্য করে, কারন এতে প্রচুর পরিমাণে পট্যাশিয়াম থাকে।
  • লাচ্ছি ইফতারের পর খেতে পারেন।
  • তুলসী পাতা বা এর রস পেটের জন্য ভাল।
  • এক চা-চামচ জিরা গুঁড়ো হাল্কা গরম পানিতে গুলে খেতে পারেন যা পেট ব্যথা বা পেট খারাপ সমস্যা থেকে বিরত রাখবে।
  • আপেল বেশি করে খেতে পারেন যা ডায়েরিয়া রোগ থেকে আপনাকে মুক্তি দিবে।
  • লেবুর শরবত সবার জন্য খুব উপকারি।

gastric gastric pain medicine gastric pain causes gastric pain area gastric pain relief

  • বেকিং সোডা : পেটের অ্যাসিডের মাত্রা নিয়ন্ত্রণ এবং গ্যাস্ট্রিকের সমস্যা থেকে তাৎক্ষণিকভাবে পরিত্রান পেতে সাহায্য করে বেকিং সোডা। ১ গ্লাস পানিতে ১-২ চা চামচ বেকিং সোডা মিশিয়ে পান করলে ভালো ফলাফল পাওয়া যায়।
  • বিভিন্ন ফলের জুস খাওয়া উচিৎ এই রমজান মাসে।
  • মধু খেতে পারেন যা আপনার হজমশক্তি বাড়াবে।
  • তাৎক্ষণিক গ্যাস্ট্রিকের সমাধান করবে লবঙ্গ যা সামান্য মধুর সাথে মিশিয়ে খেতে পারেন।

gastric gastric pain medicine gastric pain causes gastric pain area gastric pain relief

  • পুদিনা পাতার রস পেটের সমস্যার জন্য খাওয়া ভাল।
  • আপনার বুকের জ্বালাপোড়া এবং অ্যাসিডিটি থেকে তাৎক্ষণিকভাবে রেহাই পেটে গুড় খেতে পারেন। যদি বুক বেশি জ্বালাপোড়া করে, তাহলে এক টুকরো গুড় মুখে নিয়ে রাখতে পারেন। এই সমাধান ডায়াবেটিস রোগীদের জন্য নয়।
  • অলিভ অয়েল খাওয়ার অভ্যাস করা উচিৎ।
  • ভাতের মার গ্যাস্ট্রিক এর রোগীর জন্য অনেক উপকারি।
  • বিভিন্ন ধরনের স্যুপ খেতে পারেন।

gastric gastric pain medicine gastric pain causes gastric pain area gastric pain relief

যাদের গ্যাস্ট্রিক এর সমস্যা বা পেপটিক আলসারে ভুগছেন অথবা যাদের এখনও গ্যাস্ট্রিক এর সমস্যা দেখা দেয় নাই, তাদের সবার উচিৎ উপরোক্ত ঘরোয়া উপায়ে খাবার আরোহণ করা এই রমজান মাসে। কারন এই মাসে অনেক ভাজা-পোড়া বা তেলযুক্ত খাবার খেয়ে অনেকেই আমরা গ্যাস্ট্রিক এর ব্যথায় ভুগি। তাই উপরোক্ত নিয়মগুলি মেনে চললে সুস্থভাবে জীবনধারন করা সম্ভব।

 gastric gastric pain medicine gastric pain causes gastric pain area gastric pain relief

কি করলে আমারা আমাদের পোস্ট আরও ভাল করতে পারি এই বিষয়ে অবশ্যই মতামত প্রকাশ করবেন।

আরও কি টাইপের পোস্ট বা ক্যটাগরি আমরা যুক্ত করতে পারি এই বিষয়ে যদি মতামত থাকে তাও ব্যাক্ত করার অনুরোধ রইল।

ধন্যবাদ।

 

No Responses

Add a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *