পিঠ ব্যথা থেকে মুক্তি পাওয়ার ৮ টি সহজ উপায়

352
backpain

আমাদের এই কর্ম ব্যস্ততার জীবনে পিঠ ব্যথা আমাদের অনেক বড় একজন সঙ্গী। কিন্তু সঙ্গী হলেই বা কি হবে, এমন সঙ্গী কে কেউ কাছে রাখতে চায় না। বরং তার থেকে পরিত্রান পাওয়ার জন্য বিভিন্ন উপায় অবলম্বন করে থাকে। কারন দৈনন্দিন জীবনে এটি অনেক বড় এক সমস্যা হয়ে দাড়ায়। তাই এর থেকে কিভাবে আমারা সহজে মুক্তি পেতে পারি আজ সেই উপায়গুলো নিয়ে আলোচনা করা হবে।

backpain

নিয়মিত বিশ্রাম করা

বর্তমান যুগে এই কর্ম ব্যস্ততার জীবনে প্রায় ৬০% মানুষ বিছানায় ঠিক মত বিশ্রাম করার সুযোগ পায়না। যার ফলে এক টানা বসে থাকতে থাকতে, পিঠের হাড় টা কিছুটা বাকা থেকে সোজা হয়ে যায়। তাই পিঠে ব্যথা হতে থাকে। তাই সারাদিন শত কাজ থাকলেও রাতে বিছানায় বিশ্রাম করা টা সবার জন্য অপরিহার্জ।

নিয়মিত ব্যায়াম করা

প্রতি টি মানুষের উচিৎ প্রতি দিন অন্তত ৩০ মিনিট সময় হলেও ব্যায়াম করা। তার কারন প্রতি দিন যখন একটি মানুষ ব্যায়াম করবে, তখন তার শিরা – উপশিরার প্রতিটি জিনিষে জমা বাত গুলো সব ঝরে যায়। যার ফলে এই উপায়ে পিঠ ব্যথা থেকে সহজে মুক্তি লাভ করা জেতে পারে।


সঠিক চেয়ার ব্যবহার করা

সর্ব ক্ষেত্রে আমরা যখন বসার জন্য চেয়ার ব্যবহার করি, সেটি কম্পিউটার এ বসার জন্য হোক, বা পরাশুনা অথবা অফিসের কাজের জন্য হোক। সেটি অবশ্যই পিঠের জন্য আরামদায়ক হতে হবে। নয়তো সামান্য অলসতার জন্য  পিঠের হাড্ডি বাকা হয়ে পঙ্গু হয়ে যেতে পারে।

আইস বা ঠাণ্ডা সেক দিন

যখন খুব বেশি পরিমাণে ব্যথা পিঠে অনুভব করবেন তখন ঠাণ্ডা সেক দিন। এতে করে আপনার পিঠের ব্যথা আসতে আসতে কমে আসবে। সর্বদা ক্লান্তি বা পরিশ্রমের কারনে এই ব্যথা হয়ে থাকে। তাই নিয়মিত বিশ্রাম এবং বেশি ব্যথা হলে ঠাণ্ডা বরফের সেক দিলে ব্যথা কিছু টা কমে আসবে।

backpain

সঠিক ভাবে ঘুমানো

যখন আমরা ঘুমাই তখন আমরা কিভাবে ঘুমাচ্ছি এটি একটি বড় বিষয়। কেননা বেশির ভাগ সময় আমাদের পিঠ ব্যথার উৎপত্তি এর থেকে হয়ে থাকে।

তাই সঠিক ভাবে ঘুমানোর কিছু নিয়ম দেয়া হলঃ

  • যারা সোজা হয়ে ঘুমায় তারা যখন ঘুমাবে তখন পায়ের হাঁটুর নিচে অবশ্যই বালিশ রেখে ঘুমাবে। এতে করে পিঠ সোজা থাকবে।
  • যারা ডান কাঁধে ঘুমাবে তারাও একটি বালিশ তাদের হাঁটুর নিচে রেখে ঘুমাবে। এবং একটু টান – টান হয়ে আরামদায়ক ভাবে ঘুমাবে।
  • জাদের উপর হয়ে ঘুমানোর অভ্যাস আছে তাদের কে ঘাড় এবং পিঠ ব্যথা খুব দ্রুত গ্রাস করবে। তাই উপর হয়ে সোয়া “আমাদের নবীজি রাসুল (সঃ) নিষেধ করেছেন।

অতিরিক্ত ধূমপানের কারনে

ধূমপান সুধু ফুসফুস এই নয়, বরং এর থেকে গ্যাস এর সমস্যা দেখা দেয়। যার দরুন পিঠে ব্যথা হতে পারে। তাই ধূমপান ও পিঠ ব্যথার অন্যতম একটি কারন।

backpain

নড়াচড়া করা

টানা বসে না থেকে ঘন্টা খানেক পর পর হাটা চলা করা এবং শরীর কে টানা দেয়া। এতে করে বাত গুলো শরীর আর জমতে পারেনা।

হতাশা বা ক্লান্তি

হতাশা বা ক্লান্তি থেকে অনেক সময় পিঠ ব্যথা হতে পারে।  তাই তখন দীর্ঘ সময় ধরে পেইন কিলার না নিয়ে একজন ডাক্তার এর শরণাপন্ন হওয়া জরুরী।

backpain

পরিশেষে বলা যায় যে, এই নিম্মোক্ত উপায় গুলো মেনে চললে আমরা পিঠ ব্যথা থেকে মুক্তি পেতে পারি। তাই সর্বদা মেডিটিসন, জোগ ব্যায়াম এগুলা করা খুবি জরুরী। কেননা যখন মন এবং মস্তিষ্ক দুটোই আনন্দিত থাকবে তখন শারীরিক সমস্যা ও পালিয়ে যাবে।

 

কি করলে আমারা আমাদের পোস্ট আরও ভাল করতে পারি এই বিষয়ে অবশ্যই মতামত প্রকাশ

করবেন। আরও কি টাইপের পোস্ট বা ক্যটাগরি আমরা যুক্ত করতে পারি এই বিষয়ে যদি মতামত

থাকে তাও ব্যাক্ত করার অনুরোধ রইল।

ধন্যবাদ।

 

 

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here