হেপাটাইটিস এ এর উপসর্গ, কারন, চিকিৎসা ও প্রতিকারসমুহ

হেপাটাইটিস এ এর উপসর্গ, কারন, চিকিৎসা

ও প্রতিকারসমুহ:

হেপাটাইটিস এ একটি ভাইরাস যা লিভারের প্রদাহজনিত একটি রোগ। পাঁচটি পরিচিত হেপাটাইটিস (এ, বি, সি, ডি, ও ই) ভাইরাসের মধ্যে এটি অন্যতম। হেপাটাইটিস এ ভাইরাসটি হেপাটাইটিস-এ নামে পরিচিত। বড়-ছোট কম বেশি সবাই এই রোগে আক্রান্ত হতে পারে। হেপাটাইটিস এ ভাইরাসের আক্রান্ত হলে মাঝে মাঝে কোন উপসর্গ দেখা যায় না বিশেষ করে শিশুদের ক্ষেত্রে তা লক্ষণীয় নয়। আবার কিছু কিছু ক্ষেত্রে কিছু উপসর্গ দেখা যেতে পারে। হেপাটাইটিস এ এর উপসর্গ, কারন এবং প্রতিকারসমুহ জানা থাকলে এই রোগ থেকে পরিত্রান পাওয়া সম্ভব।

হেপাটাইটিস এ

হেপাটাইটিস এ এর উপসর্গ, কারন, চিকিৎসা ও প্রতিকারসমুহ – shusthodeho.net

হেপাটাইটিস ‘এ’ কি?

হেপাটাইটিস এ একটি ভাইরাস বা সংক্রমণ যা লিভারের যকৃতের রোগ এবং যকৃতে প্রদাহ সৃষ্টি করে। এই ভাইরাস ছোঁয়াচে। এক জনের হলে তার সংস্পর্শে আসলে অন্যের হতে পারে। যকৃতের তীব্র বিকলতা হতে পারে বিশেষ করে প্রবীণ মানুষদের। দূষিত খাবার ও পানি পান এবং আক্রান্ত ব্যক্তির সংস্পর্শে আসলে এই রোগ হতে পারে।




হেপাটাইটিস ‘এ’ হওয়ার সম্ভাবনা

বড়-ছোট কম বেশি সবাই হেপাটাইটিস এ তে আক্রান্ত হতে পারে, তবে যাদের বেশি হওয়ার সম্ভাবনা থাকে তারা-

  • উন্নয়নশীল দেশে ভ্রমণকারী
  • অনিয়ন্ত্রিত ওষুধ সহ অবৈধ ড্রাগ ব্যবহারকারী
  • সংক্রামিত ব্যক্তির সাথে অসংরক্ষিত যৌনমিলনকারী
  • শিশু

এছাড়াও, পুরুষদের সাথে যৌন সম্পর্কে লিপ্ত পুরুষদের হেপাটাইটিস এ তে আক্ত্রান্ত হওয়ার সম্ভাবনা বেশি।

হেপাটাইটিস এ

হেপাটাইটিস এ এর উপসর্গ, কারন, চিকিৎসা ও প্রতিকারসমুহ – shusthodeho.net

যেভাবে ছড়ায়

সাধারণত সংক্রামিত মল দ্বারা দূষিত খাবার বা পানি পানের মাধ্যমে এই রোগ ছড়াতে পারে। এছাড়াও-

  • আক্রান্ত ব্যক্তির রান্না করা বা পরিবেশন করা খাবার খেলে
  • আক্রান্ত এলাকায় ভ্রমণ করলে
  • আক্রান্ত ব্যক্তির রক্ত গ্রহণ করলে
  • ধূমপান বা যেকোনো মাদক সেবন করলে
  • আক্রান্ত ব্যক্তির সঙ্গে ঘনিষ্ঠ সম্পর্ক




হেপাটাইটিস ‘এ’ এর উপসর্গ

হেপাটাইটিস এ ভাইরাসের আক্রান্ত হলে মাঝে মাঝে কোন উপসর্গ দেখা যায় না বিশেষ করে শিশুদের ক্ষেত্রে তা লক্ষণীয় নয়। আবার কিছু কিছু ক্ষেত্রে কিছু উপসর্গ দেখা যেতে পারে। হেপাটাইটিস এ এর উপসর্গগুলো নিয়ে আলোচনা করা হল-

  • ক্লান্তি অনুভব করা
  • বমি বমি ভাব হওয়া বা বমি করা
  • ত্বক এবং চোখ হলুদ হয়ে যাওয়া
  • তলপেটে ব্যথা
  • ক্ষুদা মন্দা
  • জ্বর
  • মাংসপেশীতে ব্যথা
  • চুলকানি
  • গাঢ় রংয়ের প্রস্রাব
  • হালকা রঙের মল ইত্যাদি।

হেপাটাইটিস A এর লক্ষণগুলি ২ থেকে ৭ সপ্তাহের মধ্যে হতে পারে। ৬ বছরের কম বয়সী শিশুদের কোন উপসর্গ দেখা দেয় না। ছেলেমেয়ে এবং বয়স্কদের প্রায়ই উপসর্গ দেখা দেয়।

হেপাটাইটিস এ এর উপসর্গ, কারন, চিকিৎসা ও প্রতিকারসমুহ – shusthodeho.net

হেপাটাইটিস ‘এ’ কীভাবে নির্ণয় করা যায়?

হেপাটাইটিস ‘এ’ সাধারণত নির্ণয় করা যায় রক্ত পরীক্ষার মাধ্যমে। রক্তের পরীক্ষাগুলি একজন ডাক্তারের অফিসে বা বহির্বিভাগের রোগীদের চিকিৎসায় করা হয়। আপনার হাতে একটি চিকন সুই দ্বারা রক্তের নমুনা নেওয়া হয়। হেপাটাইটিস এ পরীক্ষা করার জন্য রক্তের নমুনা একটি ল্যাব পাঠানো হয়।

হেপাটাইটিস ‘এ’ কী কীভাবে চিকিৎসা করা হয়?

হেপাটাইটিস এ সাধারণত চিকিত্সা ছাড়া কয়েক সপ্তাহের মধ্যে ভাল হয়। তবে ৬ মাস পর্যন্ত কিছু লোকের উপসর্গ থাকতে পারে। ডাক্তার আপনার উপসর্গ অনুযায়ী ওষুধ সুপারিশ করতে পারে। আপনার শরীর সম্পূর্ণরূপে পুনরুদ্ধার করতে আপনার ডাক্তার এর পরামর্শ নিন।। যদি ৬ মাস পর উপসর্গগুলি বজায় থাকে, তাহলে আপনাকে আবার ডাক্তার দেখানো উচিত।

হেপাটাইটিস এ

হেপাটাইটিস এ এর উপসর্গ, কারন, চিকিৎসা ও প্রতিকারসমুহ – shusthodeho.net

হেপাটাইটিস ‘এ’ কীভাবে এড়াতে পারি?

হেপাটাইটিস এ ভ্যাকসিন গ্রহণ করে আপনি হেপাটাইটিস এ এড়াতে পারেন। টিকাগুলি বা ওষুধ আপনাকে সুস্থ রাখবে। ভ্যাকসিনগুলি নির্দিষ্ট ভাইরাস এবং সংক্রমণের আক্রমণের জন্য শরীরকে উজ্জীবিত করে। ১২ থেকে ২৩ মাসের মধ্যে সব শিশুকে টিকা দেওয়া উচিত।

খাবার, খাদ্য এবং পুষ্টি

যদি আপনার হেপাটাইটিস এ থাকে, তবে আপনার স্বাস্থ্যের যত্ন নেওয়ার জন্য আপনার নিজের যত্ন নিতে হবে। মদ্যপান থেকে বিরত থাকুন, যা লিভারের ক্ষতি করতে পারে। ভিটামিন এবং অন্যান্য সম্পূরক গ্রহণ করার আগে আপনার ডাক্তারের সাথে কথা বলুন।

কি করলে আমারা আমাদের পোস্ট আরও ভাল করতে পারি এই বিষয়ে অবশ্যই মতামত প্রকাশ করবেন।

আরও কি টাইপের পোস্ট বা ক্যটাগরি আমরা যুক্ত করতে পারি এই বিষয়ে যদি মতামত থাকে তাও ব্যাক্ত করার অনুরোধ রইল।

ধন্যবাদ।

Add a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *